১৬, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার

কখনো ভাবিনি পুলিশের গাড়িতে বসেই জীবনের প্রথম লাইভে আসতে হবে (ভিডিও)

আপডেট: জুন ১০, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
কখনো ভাবিনি পুলিশের গাড়িতে বসেই জীবনের প্রথম লাইভে আসতে হবে (ভিডিও)

রাজধানীর খিলগাঁও এলাকা থেকে  শনিবার (৯ জুন) মাদক বিরোধী অভিযানে কয়েকজনকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে রামপুরা থানা পুলিশ।

এরপর তাদের তোলা হয় প্রিজন ভ্যানে। সেই পুলিশ ভ্যানে বসেই ফেসবুক লাইভ দেন সন্দেহভাজন হিসেবে আটকৃকতরা। তারা ফেসবুক লাইভে এসে নিজেদের নির্দোশ দাবি করে বলেন, পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযানের নামে আমাদের মতো নিরীহ মানুষকে হয়রানী করছে।

মেহেদি হাসান রানা নামে এক তরুণের ফেসুক আইডি থেকে এই ফেসবুক লাইভ করা হয়। বেলা ১টার দিকে প্রচার করা এই ফেসবুক লাইভ ভিডিওটি মুহূর্তেই ভাইরাল ভিডিওতে পরিণত হয়।

জানা গেছে, রামপুরা থানা এলাকার তালতলা সিটি করপোরেশন মার্কেট থেকে মেহেদীকে অন্যদের সঙ্গে আটক করেছিল পুলিশ। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে প্রিজনভ্যানে তোলা হয়। আর পুলিশের অগোচরে পকেটে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মেহেদী হাসান ফেসবুক লাইভে আসেন।

সেখানে তিনি বলেন, আসসালামু আলাইকুম। আজকে ফার্স্ট টাইম লাইভে, তাও আবার আমরা পুলিশের গাড়িতে। আমাদের সরকার মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে। সেই অভিযানে তারা যাদের পাচ্ছে, তাদেরই নিয়ে আসতেছে। এখানে যারা আছেন, সবাই ব্যবসায়ী, আমাদের অযথা নিয়ে আসছে। আসলে ফার্স্ট টাইম লাইভে আসতে হবে পুলিশের গাড়িতে, এটা কখনো ভাবতে পারি নাই।

ভিডিওতে শামিম নামের আরেক তরুণ বলেন, ‘সর্তক থাকবেন দেশের যে পরিস্থিতি দেশের সরকার মাদক বিরোধী অভিযানের নাম করে ভালো ভালো মানুষকে ক্রসফায়ার করতেছে…’ ।

শামিম আরো বলেন, ‘সন্ত্রাসী মানুষ হয় কেন? আমাদের মত ভদ্র ছেলেদের ধরে নিয়ে আসে..জিদ আসে কিসের জন্য? আমরা অপরাধ না করেও অপরাধী…।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রামপুরা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা বলেন, রামপুরা থানা এলাকা থেকে ২৩ জনকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ১৬ জনকে রেখে বাকিদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

তিনি বলেন, মূলত সন্দেহভাজন হিসেবেই তাদের সবাইকে আটক করা হয়েছিল। এরপর যাদের বিরুদ্ধে মাদক সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়, তাদের নামে মামলা রুজু করা হয়েছে। তাদে রবিবার (১০ জুন) আদালতে তোলার কথা রয়েছে।

প্রিজনভ্যানে মেহেদীর ফেসবুক লাইভের বিষয়ে ওসি বলেন, বাজার থেকে আটকের সময় দু’তিনজন সাধারণ ব্যবসায়ীও ছিলেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের ছেড়ে দিয়েছি। এখন জানতে পেরেছি, মেহেদী হাসান রেইন নামে এক ছেলে প্রিজনভ্যানে থেকে ফেসবুক লাইভ করেছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সূত্র- সময়ের কন্ঠসর

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন