২৩, জুন, ২০১৮, শনিবার

সেহরি খাওয়ার পর এই ৫টি কাজ কখনই করবেন না !

আপডেট: মে ২৮, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
সেহরি খাওয়ার পর এই ৫টি কাজ কখনই করবেন না !

সেহরি খাবার পর পরই আমরা এমন কিছু কাজ করি যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে জেনে নিই সেহরি খাবার পরই কোন কাজগুলো করা উচিত নয়:

  • সেহরি খাবার শেষের হবার পর পরই তাৎক্ষণিকভাবে কোন ফল খাবেন না। এতে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।
  • সেহরি খাবার পরই ধুমপান করবেন না। আপনি সারাদিনে অনেকগুলো সিগারেট খেলেও যতটুকু না ক্ষতি হয়, সেহরি খাবার পর একটি সিগারেট বা বিড়ি তার চেয়ে অনেক বেশী ক্ষতি করবে আপনার শরীরের।
  • সেহরি খাবার সাথে সাথে চা খাবেন না। চায়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণ টনিক এসিড থাকে যা খাদ্যের প্রোটিনের পরিমাণকে ১০০ গুণ বাড়িয়ে তোলে। ফলে খাবার হজম হতে স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশী সময় লাগে।
  • বেল্ট কিংবা প্যান্টের কোমর ঢিলা করবেন না। সেহরি খাবার পরপরই বেল্ট কিংবা প্যান্টের কোমর ঢিলা করলে অতি সহজেই ইন্টেসটাইন (পাকস্থলি) থেকে রেক্টাম (মলদ্বার) পর্যন্ত খাদ্যনালীর নিম্নাংশ বেঁকে যেতে পারে, পেঁচিয়ে যেতে পারে অথবা ব্লকও হয়ে যেতে পারে। তাই কেউ বেশি খেতে চাইলে আগে থেকেই কোমরের বাঁধন ঢিলা করে নিতে পারেন।
  • গোসল করবেন না। সেহরি খাবার পরই গোসল করলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে পাকস্থলির চারপাশের রক্তের পরিমাণ কমে যেতে পারে যা পরিপাক তন্ত্রকে দুর্বল করে ফেলবে, ফলে খাদ্য হজম হতে সময় স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী লাগবে।

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে যেসব ক্ষতি!

পানির অপর নাম জীবন। কিন্তু অনেকেই জানিনা পানি পানের সঠিক পদ্ধতি ফলে পানি পান করে শরীরের তৃষ্ণা ঠিকই মেটাই কিন্তু সেই সঙ্গে শরীরেরও মারাত্মক ক্ষতি করে ফেলছি। যেমন ধরুন, দাঁড়িয়ে পানি পান করা উচিত নয়৷ করলে শরীর নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় যা নিচে দেয়া হল-

১। পাকস্থলীতে ক্ষত সৃষ্টি হয়ঃ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করলে তা সরাসরি পাকস্থলীতে গিয়ে আঘাত করে। সেই সঙ্গে স্টমার্কে উপস্থিত অ্যাসিডের কর্মক্ষমতাও কমিয়ে দেয়। ফলে বদ হজমের সহ তলপেটে যন্ত্রণাসহ আরও নানা সব শারীরিক অসুবিধা দেখা দেয়৷

২। আর্থ্রাইটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়ঃ এক্ষেত্রে শরীরের ভিতর থাকা কিছু উপকারি রাসায়নিকের মাত্রা কমতে শুরু করে। ফলে জয়েন্টের কর্মক্ষমতা কমে যাওয়ার কারণে এই ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

৩। মানসিক চাপ বেঁড়ে যায়ঃ একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করলে একাধিক নার্ভে প্রদাহ সৃষ্টি হয়। ফলে কোনও কারণ ছাড়াই মানসিক চাপ বা অ্যাংজাইটি বাড়তে শুরু করে।

৪। কিডনি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ঃ দাঁড়িয়ে পানি পান করার সময় শরীরের ভিতর থাকা একাধিক ফিল্টার ঠিক মতো কাজ করতে পারে না। ফলে পানীয় জলের মধ্যে থাকা একাধিক ক্ষতিকর উপাদান প্রথমে রক্তে গিয়ে মেশে, তারপর সেখান থেকে কিডনিতে এসে জমা হতে শুরু করে। ফলে ধীরে ধীরে কিডনির কর্মক্ষমতা কমে গিয়ে এক সময় কিডনি ড্যামেজের সম্ভাবনা দেখা দেয়।

৫। জি ই আর ডিঃ দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় পানি পান তা সরাসরি ইসোফেগাসে গিয়ে ধাক্কা মারে। এমনটা হতে থাকলে এক সময়ে গিয়ে ইসোফেগাস এবং পাকস্থালীর মধ্যেকার সরু নালীটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ফলে “গ্যাস্ট্রো ইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ” বা ডি ই আর ডি-এর মতো রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

জনসচেতনতায় শেয়ার করুন। নিয়মিত স্বাস্থ্য টিপস পেতে অামার পেইজে লাইক দিন৷ ভালো লাগলে T=Thanks, G=Good, E=Excellent সংক্ষেপে T, G বা E লিখে মন্তব্যে লিখুন৷

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন