বিশ্বকাপের পারিশ্রমিক-বোনাস প্রতিবন্ধী শিশুদের দান করে দিচ্ছেন এমবাপে

তারুণ্যের যে কী শক্তি সেটা খুব ভালভাবেই টের পেয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। তরুণ ফুটবলারদের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের সৌজন্যেই যে এবার একবিশংতম আসরের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ফ্রান্স। দীর্ঘ দুই দশক পর আবারও সোনালি ট্রফিতে ছোঁয়া! যার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন কিলিয়ান এমবাপে।

চার গোল করার পাশাপাশি নজরকাড়া পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের তরুণ প্রতিভাবান ফুটবলারের পুরস্কারটাও নিজের করে নিয়েছেন ১৯ বছর বয়সী প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর (পিএসজি) এই ফরাসী স্ট্রাইকার।

বিশ্বকাপের চলাকালিন সময়ে এমবাপে ঘোষণা দিয়েছিলেন, বিশ্বকাপে খেলার জন্য কোনো পারিশ্রমিক নেবেন না। উল্টো বলেছিলেন,‘দেশের হয়ে খেলতে পারিশ্রমিক নেওয়া উচিত নয়।’ বিশ্বকাপ শেষে কথা রেখেছেন এমবাপে।

বিশ্ব জয় করে পাওয়া পারিশ্রমিকের পুরোটাই দিচ্ছেন প্রতিবন্ধী শিশুদের। বিশ্বকাপ থেকে প্রাপ্ত প্রাইজমানির ৫ লক্ষ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪ কোটি ২২ লক্ষ টাকার বেশি) তিনি দান করছেন প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে কাজ করা একটি সংস্থাকে।

‘প্রিমিয়ার্স ডি কার্ডিস’ নামে একটি সংগঠন প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে কাজ করে। যেখানে তারা ওই শিশুদের খেলাধুলার চর্চায় সহযোগিতা করে। এমবাপে সেইসব শিশুদের প্রতি নিজের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে বিশ্বকাপ থেকে প্রাপ্ত প্রাইজমানির পুরো টাকা দান করবেন সংস্থাটিকে।

সংস্থাটির জেনারেল ম্যানেজার সেবাস্তিয়ান রুফিন বলেছেন, ‘কিলিয়ান অসাধারণ একজন ব্যক্তি। তার এ সিদ্ধান্ত আমাদের জন্য অনেক আনন্দের। শিশুদের সাথে তার সম্পর্ক খুবই চমৎকার। সে সবসময় তাদের (শিশুদের) উৎসাহ দেয়।’

বিশ্বের দ্বিতীয় দামি ফুটবলার এমবাপে বিশ্বকাপের প্রতি ম্যাচে ২২ হাজার ৩০০ ডলার করে পেয়েছেন। এছাড়া ফাইনালে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার ডলার বোনাস পেয়েছেন। সেই প্রাইজমানির পুরোটাই তিনি দান করছেন প্রতিবন্ধী শিশুদের এই সংগঠনে।