১৮, জুলাই, ২০১৮, বুধবার

না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রখ্যাত অভিনেত্রী রানী সরকার

আপডেট: জুলাই ৭, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রখ্যাত অভিনেত্রী রানী সরকার

প্রখ্যাত অভিনেত্রী রানী সরকার আর নেই (ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। আজ শনিবার ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিল্পী ঐক্যজোটের সাধারণ সম্পাদক পরিচালক জি এম সৈকত।

রানী সরকারের প্রকৃত নাম মোসাম্মৎ আমিরুন নেসা খানম। তিনি সাতক্ষীরা জেলার কালীগঞ্জ থানার সোনাতলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

খুলনা করোনেশন গার্লস স্কুল থেকে মেট্রিক পাস করেন। কয়েক বছর ধরে বাতজ্বর ও পিত্তথলিতে পাথরসহ নানা ধরনের শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন বর্ষীয়ান এ অভিনেত্রী।

১৯৫৮ সালে মঞ্চনাটকের মাধ্যমে রানী সরকারের অভিনয়ে পথচলা শুরু। একই বছর পা রাখেন বড়পর্দায়। সিনেমার নাম ‘দূর হ্যায় সুখ কা গাঁও’।

প্রায় এক হাজার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন রানী সরকার। বাংলা চলচ্চিত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪’ এ আজীবন সম্মাননা লাভ করেন।

আরোও পড়ূন-

‘ব্রাজিলকে হারিয়ে বেলজিয়াম জেতেনি, জিতেছে আর্জেন্টিনা..’

‘ব্রাজিল আজ হেরে গেলো। শৈল্পিক খেলা খেলেই হেরেছে তারা। নেইমারও ছিল অনেক উজ্জ্বল। কিন্তু বেলজিয়াম গোলরক্ষক কুরতোয়ার দক্ষতাই দু’ই দলের মধ্যে ব্যবধান গড়ে দেয়। তবে, আমরা শক্ত প্রতিপক্ষের কাছে হেরেছি। তবে এমন একটা দল (ব্রাজিল) নিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলতে না পারাটা ব্রাজিল সমর্থকদের জন্য সত্যেই হৃদয়বিদারক। কান্নায় বুক ফেটে যাচ্ছে আমার। খেলার শেষ পাঁচ মিনিট আগেই আমাদের চোখে পানি এসেছিল।’ এভাবেই ব্রাজিলের হারে মন ভেঙে যাওয়া অভিজ্ঞতা জানাচ্ছিলেন মিরপুর বিশ্ববিদ্যায়ের ছাত্র সোহান।

রাজধানীর মিরপুরের মসজিদ মার্কেট সংলগ্নে ব্রাজিলের জার্সি পড়ে খেলা দেখতে এসেছিল নয় বন্ধু। তাদের চারজন আবার আর্জেন্টিনার সমর্থক, বাকি পাঁচজন ব্রাজিলের। ব্রাজিলের জার্সি পরে খেলা দেখতে আসা সোহানসহ সবার মুখে কষ্টের ছাপ স্পষ্ট।

ব্রাজিলের পরাজয়ের পর আরেক ব্রাজিলীয় সমর্থক চোখ মুছতে মুছতে বলছেন, ‘খেললো ব্রাজিল আর বেলজিয়াম। কিন্তু জিতলো আর্জেন্টিনার সমর্থক। তারা (আর্জেন্টিনার সমর্থক) এমন বাজে ভাবে উদযাপন করছিল, সত্যিই খারাপ লাগছিল। আরে বাবা! খেলা তো আর আর্জেন্টিনার সঙ্গে হয়নি। আর্জেন্টিনার কাছে তো হারেনি অথচ তাদের এত উল্লাস কিসের? আর্জেন্টিনা তো এই বিশ্বকাপে কিছুই করে দেখাতে পারে নি। লজ্জা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে।’

শুধু মিরপুরের মসজিদ মার্কেট এলাকা নয়, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ব্রাজিলের হারে আর্জেন্টিনার সমর্থকরা বাধঁভাঙা আনন্দ উদযাপন করেছেন। বাজিয়েছেন ভুভুজেলা, ফুটিয়েছেন আতশবাজি। মিরপুর, খিলগাঁও, মোহাম্মদপুর তো আনন্দ মিছিল বের করে আর্জেন্টিনার সমর্থক গোষ্ঠী।

এসময় ‘ব্রাজিল ভুয়া…, ভুয়া..’, ‘আজকের সেরা জোকস.., ব্রাজিল জিতেছে..!’ এ ধরনের স্লোগান দেন তারা।

উল্লাসিত আর্জেন্টিনার সমর্থক কাজী ফাহাদুর রহমান রাজু বলেন, ‘সেভেন আপের লোভ দেখিয়ে শেষমেশ ব্রাজিল ফ্যানদের দুইটাকার সেন্টার ফ্রুট ধরিয়ে দিল বেলজিয়াম।’

জিতছে বেলজিয়াম আর আনন্দ করছেন আপনারা? এমন প্রশ্নের জবাবে আর্জেন্টিনার সমর্থকরা বলেন, ‘আসলে বেলজিয়ামের জয়ে আমাদের আনন্দ নেই। কিন্তু হেরেছে ব্রাজিল তাই উদযাপন করছি। কারণ ফ্রান্সের বিপক্ষে যেদিন আর্জেন্টিনা হেরেছিল, সেদিন আমার ব্রাজিল সমর্থক বন্ধুরা কত উদযাপনটাই না করেছিল। তারা তো আর্জেন্টিনা ভুয়া, আর্জেন্টিনা হারা পার্টি বলেও আমাদের বিদ্রূপ করেছিল। এমন কি আমার এক বন্ধু আমাকে বলেছিল, আর্জেন্টিনা বাদ দিয়ে.. ব্রাজিলে চলে এসো। আমি সেদিন কিছুই বলিনি, শুধু বলেছিলাম তোমাদের হারার দিনও আসবে। সেদিন আমরা উদযাপন করবো।’

ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই উন্মাদনা, ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই প্রিয় দলকে নিয়ে আবেগে ভেসে যাওয়া। এমনই বৈশিষ্ট বাংলাদেশি আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের। কিন্তু বিশ্বকাপ শেষে তারাই একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে, বুকে বুক মিলিয়ে তামিম-মুশফিকদের জয় উদযাপন করে, তা কিন্তু বলার অপেক্ষা রাখে না।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন