স্ত্রীর সামনেই ডুবে মরলো স্বামী ও শিশুসন্তান

নদীর কিনারায় পড়ে রয়েছে বাবা ও কন্যার নিথর প্রাণহীন দেহ। বাবার টি শার্টের ভেতরেই ঢুকে ছিলো ছোট্ট মেয়েটি। হাত দিয়ে জড়িয়ে ধরে রেখেছিলো বাবার কাঁধ। সোমবার তোলা হয়েছে মর্মান্তিক এ ছবিটি। এরইমধ্যেই ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এটি। ছবিটিতে দেখতে পাওয়া পুরুষটির নাম অস্কার অ্যালবার্তো মার্টিনেজ। এল স্যালভেদর থেকে আসা অস্কার তার পরিবার নিয়ে রিও গ্র্যান্ডে নদী পাড়ি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে চেয়েছিলেন।

স্থানীয় সাংবাদিক জুলিয়া লে ডাক জানান, অস্কার তার ২৩ মাস বয়সী কন্যা অ্যাঞ্জি ভ্যালেরিয়াকে নিয়ে নদী পাড়ি দিতে গিয়ে তীব্র স্রোতে মাঝনদীতে ভেসে যান। পড়ে নদীর কিনারায় তাদের লাশ এসে ভীড়ে। তিনি সেই মর্মান্তিক দৃশ্যটি ক্যামেরায় ধারণ করেন ও মেক্সিকোর স্থানীয় লা জর্নাডা সংবাদপত্রে তা প্রকাশ করেন।

পত্রিকাটি অস্কারের স্ত্রী তানিয়ার সঙ্গে কথা বলেছে। তিনি পত্রিকাটিকে জানান, পুরো ঘটনাটি তার চোখের সামনেই ঘটেছে। মাঝনদীতে স্বামী ও শিশু কন্যার ডুবে যাওয়ার সময়টি তার তাকিয়ে দেখা ছাড়া আর কিছুই করার ছিলো না।

ভালো জীবন-যাপন ও জীবিকার আশায় এভাবে হাজার হাজার লোক ঝুঁকিপূর্ণ পথে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থীতির শিকার হতে হয় তাদের।

নদী পাড়ি দেয়ার আগে যুক্তরাষ্ট্রের মাটামোরোস শরণার্থী শিবিরে কয়েক মাস তারা অবস্থান করেছিলেন বলে জানান তানিয়া। সেখানে তাদের ১১৩ ড্রিগ্রী ফারেনহাইট তাপমাত্রার চরম গরমের মধ্যে থাকতে হয়েছিলো।

তারা যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থণা করেছিলেন। মেক্সিকো সরকারের দেয়া বিশেষ মানবেতর ভিসাও ছিলো তাদের কাছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষের কোনো সাড়া না পেয়ে নদী পাড়ি দেয়ার পরিকল্পনা করেন তারা।

টাম্প প্রশাসন কর্তৃক শরণার্থী আইন কঠোর করায় দেশটিতে আর আগের মতো করে আর আশ্রয় নিতে পারছেনা শরণার্থীরা।

কিন্তু বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যুদ্ধ-সংঘাত ও চরম অর্থনৈতিক সঙ্কট চলায় শরণার্থী সমস্যা ক্রমশ প্রকট থেকে প্রকটতর হচ্ছে। মিলছে না এ সমস্যার কোনো কার্যকর সমাধান।