বৌয়ের ভয়ে ৬২ বছর ধরে বোবার অভিনয়!

৬২ বছর আগের কথা। বেশ জাঁকজমক ভাবে ডরথি নামে এক নারীকে বিয়ে করেন ব্যারি ডসন। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের কানেটিকাট রাজ্যের ওয়াটারবুরি শহরে বেশ সুখে শান্তিতেই দাম্পত্য জীবন পার করছিলেন এই দম্পতি। তারা ৬ সন্তানের জনক-জননীও হয়েছেন বহু আগেই। বৃদ্ধ ওই দম্পতির নাতি-নাতনিও রয়েছে ১৩ জন। সন্তান, নাতি-নাতনিরাও জানেন তাদের বাবা এবং দাদু বোবা-কালা। হটাৎ একদিন আচমকা সবাই জানতে পারলো, এতদিন বোবার অভিনয় করেছেন ব্যারি ডসন!

তিনি বোবাও নয়, কালাও নয়। ৬২ বছর ধরে বোবা আর কালা সেজে বসে আছেন বউ-এর কথা শুনতে হবে না বলে। এতগুলো বছরে একটা রা কাড়েননি বেরি ডওসন। উলটে কথা না-বলতে পারা বরের সঙ্গে কথোপকথন ছাড়াও কীভাবে ইঙ্গিতে-ইশারায় সবটা বোঝাতে হয়, তার সবটা শিখে নিয়েছিলেন স্ত্রী। অবশেষে অভিনয়ের তথ্য ফাঁস হয়ে গেলে রেগে কাঁই হয়ে বউ গেলেন আদালতে, দাবি ডিভোর্স।

জানা যায়, এই পুরো অভিনয়টা তিনি নাকি শুধু বাড়িতেই করতেন। এটা ধরাও পড়ত না, যদি না একটি ইউটিউব ভিডিয়োতে দেখা যেত তিনি একটি ইভেন্টে গান করছেন এবং একটি মিটিং-এ সবার সঙ্গেই কমিউনিকেট করছেন!

ডরথি বলেছেন, ‘আমি বাসায় থাকলে ব্যারি ডসন বোবা-কালার অভিনয় করে যেতেন। একটি ইউটিউব দেখে আমি এই বিষয়টি জানতে পেরেছি। ইউটিউবে দেখা যায় যে, রাতে একটি বারে বন্ধুদের নিয়ে বাজনার সঙ্গে সঙ্গে ব্যারি ডসন গানও গাচ্ছেন জলজ্যান্ত মানুষের মতো। তিনি একটি চ্যারিটি সভায়ও সবার সঙ্গে কমিউনিকেট করেন। এরপরই আমি সব বুঝতে পেরে যায়।’

এদিকে ব্যারি ডসনের আইনজীবী রবার্ট সানচেজ বলেন, ‘আমার ক্লায়েন্ট ব্যারি ডসন স্বল্পভাষী একজন মানুষ। অপরদিকে ডরথি হলেন একজন বাচাল টাইপের। ব্যারি যদি বোবা-কালা সেজে না থাকতেন তাহলে ৬২ বছর আগেই তাদের ডিভোর্স হয়ে যেতো। বোবা-কালা সেজে থাকার কারণেই তারা ৬২ বছর ধরে সংসার করতে পেরেছেন।’